নবজাতক শিশুর প্রয়োজনীয় কেনাকাটা- নবজাতকের জন্য কি কি কিনতে হয়?

বাড়িতে নতুন অতিথির আগমন, নতুন অতিথিকে স্বাগতম জানানোর জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোর একটি লিস্ট দেওয়া হলো।

স্ট্রলার: বিদেশে থাকলে স্ট্রলার একদম প্রথম দিন থেকেই মাস্ট। আর বাচ্চার মেইন স্ট্রলারটা খুব ভালো ব্র্যান্ড দেখে কেনা উচিত। বিশেষ করে যদি কেউ শীতপ্রধান দেশে বা পাহাড়ী অন্চলে থাকেন। একটা ভালো ব্র্যান্ডের স্ট্রলার একাধারে ৪-৫ বছর পর্যন্ত আর কমপক্ষে দুইটা বেবির জন্যও ব্যবহার করা যায়। স্ট্রলার কিনার আগে সবার আগে দেখে নিতে হবে যে শোয়ানো সিট+বসানো সিট দুইটাই আছে কিনা, সেই সাথে চাকার সাইজ (বড় ভারী চাকা হলে স্মুথলি চালানো যায়) শীতপ্রধান দেশ হলে উইন্টার টায়ার আছে কি না, ইজিলি খোলা যায়-লাগানো যায় কিনা অর্থাৎ Dismantle করা যায় কিনা, স্ট্রলারের নিচের ক্যারিয়ারে এনাফ জায়গা আছে কি না ইত্যাদি দেখে নিতে হবে। Bugaboo, Emmaljunga, Uppababy, Graco, Stokke, Chicco এই রকম আরো অনেক ব্র্যান্ড আছে। আমার ছেলের জন্য নিয়েছিলাম বুগাবো স্ট্রলার।এতো ভালো স্ট্রলার যে ঐটা দিয়ে দিতে আমার এতো কষ্ট লেগেছিল!

স্ট্রলার ব্যাগ: স্ট্রলার এর সাথে স্ট্রলার ব্যাগ লাগবেই। ডায়াপার ব্যাগও বলে এটাকে। স্ট্রাইপ আছে, বাইরে যাওয়ার সময় সবসময় স্ট্রলারের সাথে ঝুলিয়ে নেওয়া যাবে, এনাফ চেম্বার আছে-এরকম দেখে নিলে ভালো। Skip Hop এর ব্যাগ আমার কাছে বেস্ট মনে হয়েছে।

কারসিট: এটাও বিদেশ লাইফে ম্যান্ডাটরি। কার সিট ছাড়া হাসপাতাল থেকে বাচ্চা বাসায় নেওয়া যাবে না। প্রথমে ০-৬ মাসেরটা কিনে ৬ মাস পার হয়ে গেলে চেন্জ করে বড় সাইজটা কিনে নেওয়া যায়।অথবা অনেক কারসিট আছে যা নবজাতক থেকে টডলার বয়স পর্যন্ত ব্যবহার করা যায়। আমার কাছে সব সময় Britax ভালো মনে হয়েছে। অন্য সব ব্র্যান্ডেই এরকম থাকার কথা।

নবজাতকের টুকিটাকি

ক্রিব/বেবি কট+ কট ম্যাট্রেস+ কট এর চাদর/শীট: বোথ সাইড ওপেন করা যায়, এমন কট নিলে সুবিধা। খাটের পাশে এনাফ জায়গা থাকলে এক সাইড খুলে খাটের সাথে এটাচ করে দেওয়া যাবে। বাচ্চার নিরাপত্তার জন্যই বাচ্চাকে কটে ঘুম পারানো উচিত। আর মায়েরও ভালো ঘুম হয় এতো।

মোবাইল ক্রিব টয়: কটের সাথে সেট করা যায় এমন মুভাবল খেলনা। খুব হালকা, সুদিং মিউজিক দেখে কেনা উচিত। তাতে বাচ্চাদের ভালো ঘুম হয়। বাচ্চাকে খেলনা অন করে দিয়ে টুকিটাকি কাজ সেরে ফেলা যায়।

বেবি নেস্ট: কো-স্লিপ করতে চাইলে বেবি নেস্ট কিনে নেওয়া ভালো। এর কারণ হ’ল বেবি নেস্ট এ ঘুমালে বাচ্চা নিজের পিঠে ঘুমায়, আর এতে SIDS এর ঝুঁকি কমে। প্রথম চার মাস যখনি যেখানেই ঘুম পারতাম, বেবি নেস্ট এর মধ্যে নিয়ে ঘুম পারিয়েছি। ফলে, আরামে ঘুমাতো বাচ্চাটা। এ কারণেই হয়তো ঘুম নিয়ে আমার বাচ্চা কখনো সেভাবে ঝামেলা করে নি।

ডায়াপার চেঞ্জিং টেবিল (এটা ম্যান্ডাটরি না, তবে থাকলে খুব সুবিধা। অনেকগুলো ক্যাবিনেট থাকে, ডায়াপার চেন্জের সময় খুব সুবিধা হয়।)

ডায়াপার চেঞ্জিং শীট/ চেঞ্জিং প্যাড: চেন্জিং প্যাড কয়েকটা কিনে রাখা উচিত। একটা এক্সট্রা সবসময় ডায়াপারের ব্যাগে রাখার জন্য যেন আউটসাইডে যেকোনো জায়গায় ইজিলি ক্লিন করতে পারা যায়।

ডায়াপার পাইল ( ডায়াপার ফেলার বিন) এটা খুব কাজের একটা জিনিস। লক সিস্টেম থাকে, তাই ডায়াপার ফেললেও গন্ধ বাইরে আসে না আর ঘর গন্ধ হবে না।

ডায়পার র‍্যাশ ক্রিম: নিয়মিক ডায়াপার পরালে ডায়াপার ক্রিম মাস্ট (সুডোক্রিম/ Bepanthen ক্রিম)

বাথটাব: বসানো/শোয়ানোর সিট আছে, এমন বাথটাব নিলে সুবিধা। নাহলে আলাদা বাথার বা বাথ চেয়ার লাগবে।

বাথ টাওয়েল+ ওয়াশক্লথ: হুডওয়ালা বাথ টাওয়াল হলে সহজে মাথা আর গা মুছতে সুবিধা হয়। আর ওয়াশক্লথ অনেকগুলো সেট কিনে রাখলে ভালো। বাচ্চার ছোট বয়সে ছোট এই রুমালগুলে খুব দরকার হয়। পাতলা কটন বা ব্যাম্বু কটনের ওয়াশক্লথগুলো খুব ভালো আর একদম সফট।

ফিডিং বটল: একটা/দুইটা ছোট বটল কিনে রাখা উচিত। যেকোনো সময় দরকার হতে পারে।

বটল স্যানিটাইজার (এটা অপশনাল, তবে থাকলে বটল স্যানিটাইজে সুবিধা হয়)।

ব্রেস্ট পাম্প: ব্রেস্ট মিল্ক প্রেস করে রাখার জন্য এটা দরকার হবে। ইলেকট্রনিক টা নেওয়া উচিত। ইলেকট্রনিক এর মধ্যে Medela best মনে হয়েছে আমার কাছে।

নার্সিং প্যাড: ব্রেস্ট মিল্ক ওভার ফ্লো হলে লাগবে।

নিপল ক্র্যাকিং ক্রিম: প্রথম কিছু দিন নিপল ক্র্যাক খুব স্বাভাবিক ঘটনা। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী একটা ক্রিম কিনে রাখা উচিত, খুব হেল্প হয়।

নিপল শীল্ড: আমার জীবন বাঁচিয়েছে এই নীপল শীল্ড নামক জিনিসটা। নিপল ক্র্যাক এর জন্য ব্রেস্টফীড করাতে পারতাম না প্রথম প্রথম। তারপর শীল্ড ব্যবহার করার পর একদম ভালোভাবে খাওয়াতে পেরেছি। আমি অনেকদিন শীল্ড ইউজ করেই ব্রেস্টফীড করেছি।

বেবি বারপিং ক্লথ (optional) : যেহেতু ছোট্ট বাচ্চা বারবার বমি করে, বার্পিং এর সময় বারপিং ক্লথ ইউজ করলে ক্নিন থাকতে সুবিধা।

বেবি নেইল ক্লিপার সেট: খুব দরকারি একটা সেট। নিউবর্ন বেবির নখ কাটার জন্য উপযুক্ত ছোট ক্লিপার থাকে। অবশ্যই কিনতে রেকমেন্ড করবো সবাইকে।

প্যাসিফাইয়ার: ইনডিভিজুয়াল চয়েস। আমি দিয়েছি। খুব খুব হেল্প হয়েছে আমার।

নবজাতকের টুকিটাকি

বাবুর জামা-কাপড়+ রম্পার সেট+ জ্যাকেট: অনেক বেশি না, অল্প করে কেনা উচিত কারণ খুব তাড়াতাড়ি এদের সাইজ চেন্জ হয়ে যায়!

কম্বল: একদম হালকা, হালকা, একটু ভারী, ভারী, বেশি ভারী-এরকম বিভিন্ন ধরণের বেশ কয়েকটা কেনা উচিত। ভালো ব্ল্যাংকেট হলে অনেকদিন ব্যবহার করা যায়। আমার ছেলের বয়স ২ বছর ৯ মাস। ওর সবগুলো ব্ল্যাংকেট এখনো ইউজ করি।

সোয়াডল ব্ল্যাংকেট: এটা প্রথম ৩-৪ মাস ভালো কাজে দেয়। সোয়াডল করে রাখলে বাবু ভালো ঘুমায়। আমার বাচ্চা অবশ্য সোয়াডল পছন্দ করতো না, তাই আমার সোয়াডল গুলো আনইউজড থেকে গিয়েছে।

মাথার টুপি-মোজা-মিটেনস: শীতের দেশে বেশি জরুরী। হাতে মিটেনস পরিয়ে রাখলে বাচ্চা আঁচড় কাটতে পারে না।

বেবি ক্যারিয়ার/ Baby wrap: নিউবর্ন বেবি নিজের সাথে ক্যারি করার জন্য Moby Wrap টা বেস্ট। একদম ক্যাঙ্গারু কেয়ারের মতো বেবি উষ্ণতায় আর আরামে থাকে। ৪ মাস হবার পর ঘাড় শক্ত হলে ক্যারিয়ারে নেওয়া যায়।

ফিডিং এপ্রন: অতি অবশ্যই দরকারি। চাইলে এটা বাসায় বানিয়ে নেওয়া যায়। একটা এপ্রন মানেই হলো নে টেনশন। যেকোনো জায়গায় বসেই বেবিকে ফিডিং করানো যায়।

ফিডিং পিলো: বেবিকে কোলে বসিয়ে ব্রেস্টফীড করানোর জন্য এটা দরকার। বিশেষ করে একদম ছোট বয়সে যখন সারাদিন খেতে চায়, তখন এই পিলোটা থাকলে খুব আরাম হয়।

লিখেছেন,

সায়মা রাজ্জাকী

Leave a Reply

Your email address will not be published.