গর্ভবতী মায়ের কতবার ডাক্তারের কাছে যাওয়া উচিত?

গর্ভধারণের পর থেকে প্রসব না হওয়া পর্যন্ত সময়ে গর্ভবতী মা এবং গর্ভস্থ সন্তানের নিয়মিত যত্ন নেয়াকে “গর্ভকালীন পরিচর্যা বা এন্টিনেটাল কেয়ার” বলা হয়।গর্ভবতী মায়েদের মনে প্রশ্ন থাকে কতবার ডাক্তারের শরনাপন্ন হওয়া উচিত।

গর্ভকালীন পরিচর্যার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যসমূহ বাস্তবায়নের পদক্ষেপসমূহ মধ্যে “এন্টিনেটাল ভিজিট” অন্যতম একটি।

গর্ভবস্থায় গর্ভধারণের পর থেকে প্রসব না হওয়া পর্যন্ত সময়ে গর্ভবতীর নির্দিষ্ট সময় পর পর চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়াকে “এন্টিনেটাল ভিজিট” বলা হয়। সাধারণত, এন্টিনেটাল ভিজিট এর Minimum Visit ৩বার,Standard Visit ১৪বার এবং Intermediate Visit ৫বার। Intermediate পর্যায়ের-১ম ভিজিট-১২সপ্তাহের পূর্বে২য় ভিজিট-(২০-২২) সপ্তাহে ৩য় ভিজিট-(২৮-৩২) সপ্তাহে৪র্থ ভিজিট- ৩৮সপ্তাহে৫ম ভিজিট- ডেলিভারী পর্যন্ত করা হয়ে থাকে।

গর্ভবতী মায়ের ডাক্তারের কাছে ভিজিটের সময়সূচী

WHO -এর মতে কমপক্ষে ৪বার এন্টিনেটাল ভিজিট করা উচিত।যথা- ১ম ভিজিট-১৬ সপ্তাহ অথবা এর পূর্বে ২য় ভিজিট-(২৪-২৮) সপ্তাহ ৩য় ভিজিট-৩২ সপ্তাহ ৪র্থ ভিজিট-৩৬ সপ্তাহ এন্টিনেটাল ভিজিট এর মাধ্যমে গর্ভবতীর স্বাস্থ্যগত ইতিহাস এবং স্বাস্থ্যগত পরীক্ষাসহ E.D.D বা Expected Date of Delivery দেয়া হয়।এছাড়াও, মায়ের ওজন বৃদ্ধি সঠিকভাবে হচ্ছে কি না,হিমোগ্লোবিন সঠিকভাবে আছে কি না,জরায়ুতে ফিটাসের অবস্থান সঠিকভাবে হচ্ছে কি না, মা কর্তৃক ফিটাসের নড়াচড়া অনুভব হচ্ছে কি না ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো সম্পর্কে চিকিৎসক অবগত করেন।

অর্থাৎ,গর্ভাবস্থায় গর্ভবতীর সুস্বাস্থ্য নিশ্চিতসহ,ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতি রোধ করতে এন্টিনেটাল ভিজিট একান্ত প্রয়োজন। এক্ষেত্রে গর্ভবতীর বাড়ি থেকে হাসপাতালের যাতায়াত ব্যবস্থা,পারিবারিক অর্থনৈতিক অবস্থা এবং চিকিৎসকের পরামর্শগুলো অবশ্যই মনে রাখতে হবে।শেষ না বললেও না যে,সঠিকভাবে এন্টিনেটাল ভিজিট এর দ্বারা মা ও শিশুর সুস্বাস্থ্য অনেকখানি নিশ্চিত করা সম্ভব। তাই,নিজ নিজ উদ্যোগ হতে এন্টিনেটাল ভিজিট সম্পর্কে জানি এবং অপরকে জানাতে সাহায্য করি।

লিখেছেন

ফরিদা জাহান হৃদী

ইমেইলঃ hridiazad@gmail.com

শিশু বিকাশ ও সামাজিক সম্পর্ক বিভাগ

গভর্নমেন্ট কলেজ অব এপ্লাইড হিউম্যান সাইন্স

Leave a Reply

Your email address will not be published.